কালিগঞ্জে গৃহবধূকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

2

ডেস্ক রিপোর্ট: সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের পল্লীতে গৃহবধূকে (২৬) শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে আব্দুল করিম (৪০) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার (৯ জুন) সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার ধলবাড়িয়া ইউনিয়নের বাজুয়াগড় এলাকায়।

ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ জানান, আমার স্বামী পেশায় ভ্যানচালক। তিনি দিনের বেশিরভাগ সময় কর্মের তাগিদে বাহিরে থাকেন। সেই সুযোগে একই গ্রামের আব্দুল করিম আমার বাড়ির সামনে রাস্তার উপর এসে আমার দিকে উকিঝুকি মারতে থাকে এবং আমাকে একা পেলে কু-প্রস্তার দিয়ে উক্ত্যক্ত করতে থাকে।

ইতিপূর্বে আমাকে কু-প্রস্তাব ও গায়ে হাত দেওয়ায় আমি বিষয়টি অমার স্বামী ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিকট অবহিত করি। ফলে স্থানীয়ভাবে একটি শালিস বিচার হয়। ওই বিচারে অভিযুক্ত আব্দুল করিম আমাকে আর কখনও উত্ত্যক্ত করবে না মর্মে প্রতিশ্রæতি দিয়ে বিষয়টি মিমাংসা করে নেয়।

কিন্তু শালিস বিচারের কয়েকদিন পর থেকে করিম আবারও আমাকে উক্ত্যক্ত করতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার  সকাল ১০ টার দিকে আমি ব্যক্তিগত কাজে আমার বাড়ির সামনে গেলে অভিযুক্ত করিম আমাকে কু-প্রস্তাব দেয়। আমি কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় অভিযুক্ত করিম আমার হাত ধরে টানাটানি করতে থাকে। ওই সময়ে একই এলাকার মৃত বাহারউল্লাহ গাজীর ছেলে জিয়াদ আলী (৫০) ও আমজেদ হোসেনের ছেলে আলমগীর হোসেন (২০) এর ইন্ধনে করিম আমার শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে ও পরিহিত কাপড় ধরে- টানাটানি করে শ্লীলতাহানি ঘটায়। আমার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে তারা দ্রæত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

এদিকে এসব বিষয়ে অভিযুক্ত আব্দুল করিমের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে সেগুলো মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তাদের সাথে আমার ব্যক্তিগত কোন বিরোধ নেই। তারপরও কেন জানি ওরা আমাকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে সমাজে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করছে।

কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা জানান, এখনও লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।