সময়মতো প্রকল্প শেষ না হলে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

7

লিংক বিডি ডেস্ক : সরকারি প্রকল্প, কার্যাবলি ও কর্মসূচি সময়মতো শেষ না হলে দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা তুলে ধরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রকল্প অধিশাখা থেকে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

‘সরকারি কার্যাবলি, কর্মসূচি ও প্রকল্প বাস্তবায়নের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা পরিপালন সংক্রান্ত’ চিঠিতে বলা হয়, সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয় বা বিভাগের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা নিম্নরূপ- ‘সরকারি কার্যাবলি, কর্মসূচি ও প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রায়শই দীর্ঘসূত্রতা দেখা যায়। নির্ধারিত সময়ে এগুলো সম্পাদিত না হওয়ায় এর সুফল থেকে দেশ ও জাতি বঞ্চিত হয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই ব্যয় বৃদ্ধি পায়।’

‘এছাড়া আর্থিক শৃঙ্খলারও ঘাটতি পরিলক্ষিত হয়। সে কারণে বছরের প্রথম থেকেই এসব বিষয়ে কর্মপরিকল্পনা এবং আর্থিক পরিকল্পনা প্রণয়ন করে নিবিড় তত্ত্বাবধান ও মনিটরিং করা প্রয়োজন।’

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আরও বলা হয়, ‘পাশাপাশি বিষয়গুলো পর্যালোচনা করে যথাসময়ে কার্যাবলি বা কর্মসূচি বা প্রকল্প সম্পাদন না হয়ে থাকলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা বিভাগের আবশ্যিক পর্যালোচনা বা তদন্ত করে দেখা এবং দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা বাঞ্ছনীয়।’

প্রধানমন্ত্রীর এসব নির্দেশনা পরিপালন করার জন্য মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে অনুরোধও জানানো হয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের চিঠিতে।

থা নিতে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা তুলে ধরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রকল্প অধিশাখা থেকে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

‘সরকারি কার্যাবলি, কর্মসূচি ও প্রকল্প বাস্তবায়নের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা পরিপালন সংক্রান্ত’ চিঠিতে বলা হয়, সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয় বা বিভাগের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা নিম্নরূপ- ‘সরকারি কার্যাবলি, কর্মসূচি ও প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রায়শই দীর্ঘসূত্রতা দেখা যায়। নির্ধারিত সময়ে এগুলো সম্পাদিত না হওয়ায় এর সুফল থেকে দেশ ও জাতি বঞ্চিত হয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই ব্যয় বৃদ্ধি পায়।’

‘এছাড়া আর্থিক শৃঙ্খলারও ঘাটতি পরিলক্ষিত হয়। সে কারণে বছরের প্রথম থেকেই এসব বিষয়ে কর্মপরিকল্পনা এবং আর্থিক পরিকল্পনা প্রণয়ন করে নিবিড় তত্ত্বাবধান ও মনিটরিং করা প্রয়োজন।’

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আরও বলা হয়, ‘পাশাপাশি বিষয়গুলো পর্যালোচনা করে যথাসময়ে কার্যাবলি বা কর্মসূচি বা প্রকল্প সম্পাদন না হয়ে থাকলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা বিভাগের আবশ্যিক পর্যালোচনা বা তদন্ত করে দেখা এবং দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা বাঞ্ছনীয়।’

প্রধানমন্ত্রীর এসব নির্দেশনা পরিপালন করার জন্য মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে অনুরোধও জানানো হয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের চিঠিতে।