সাংবাদিক হত্যার বিচারের দাবিতে সাতক্ষীরায় মুখে কালোকাপড় বেঁধে মানববন্ধন

6

রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার ‘বার্তা বাজার’ এর নোয়াখালী প্রতিনিধি বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির-কে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদ ও দোষীদের বিচারের দাবিতে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে সাংবাদিকরা। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টায় সাতক্ষীরা শহরের নিউ মার্কেট মোড়স্থ শহীদ স ম আলাউদ্দিন চত্ত্বরে মুখে কালোকাপড় বেঁধে ঘন্টাব্যাপী ওই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।মুনসুর রহমানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাপ্তাহিক সূর্যের আলো পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক আব্দুল ওয়ারেশ খান চৌধুরী, সাতক্ষীরা জেলা সাংবাদিক ঐক্য পরিষদের আহবায়ক শরিফুল্লাহ কায়সার সুমন, দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার বার্তা সম্পাদক এস এম শহিদুল ইসলাম, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ, চ্যানেল ২৪ এর সাতক্ষীরা প্রতিনিধি আমিনা বিলকিস ময়না, বার্তা বাজার’র সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ও দেবহাটা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর খায়রুল আলম, জেলা নাগরিক কমিটির যুগ্ন সদস্য সচিব আলী নুর খান বাবুল প্রমুখ।মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সারাদেশে সাংবাদিকরা প্রায়শই হামলার শিকার হচ্ছেন। পাশাপাশি মিথ্যে মামলা দিয়েও অনেককে হয়রানি করা হচ্ছে। এমনকি প্রকাশ্য দিবালোকে হত্যা করা হলেও তার বিচার হচ্ছে না। পেশাগত দায়িত্ব পালনে সাংবাদিকদের কোন প্রকার নিরাপত্তা নেই। সাংবাদিকদের কন্ঠরোধ করে সমাজকে অন্ধকারে ঠেলে দিতে অপরাধীরা মরিয়া হয়ে উঠেছে। তাদের বিরুদ্ধে সত্য প্রকাশ করলে নানা ভাবে হয়রানি ও হত্যার মত কর্মকান্ডে লিপ্ত হচ্ছে দুর্বৃত্তরা। তাই এখনই সময় এসেছে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার। সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের।

বক্তরা আরো বলেন, আমরা আজকের এই কর্মসূচি থেকে বলতে চাই এ পর্যন্ত যত সাংবাদিক হত্যা ও হামলা-মামলার শিকার হয়েছেন, তার সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করা না হলে আগামীতে বৃহত্তর কর্মসূচি পালন করা হবে। আগামী ৩ দিনের মধ্যে তরুণ সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কিরের হত্যার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে হবে। একই সাথে সাতক্ষীরার স ম আলাউদ্দিনসহ সকল সাংবাদিক হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন বক্তারা।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার বিকালে নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জে বসুরহাট পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জার অনুসারীদের সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগের একাংশের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত পৌনে ১১টার দিকে মারা যান সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির। এঘটনায় এখনো কোন অপরাধিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। অতিদ্রুত হত্যাকারীদের আইনের আওতার আনার দাবি জানিয়েছেন সাতক্ষীরার সাংবাদিক সমাজ।