সাতক্ষীরার বৈকারী ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যে অপপ্রচারের প্রতিবাদে যুবলীগ নেতার সংবাদ সম্মেলন

6

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বৈকারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ
আসাদুজ্জামান অসলে’র বিরুদ্ধে মিথ্যেচারের প্রতিবাদ জানিয়েছেন তার ছেলে মোঃ ইনজামুল হক। বৃহস্পতিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন তিনি এই প্রতিবাদ জানান। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তার পিতা মোঃ আসাদুজ্জামান (অসলে) আ’লীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে বিগত ইউপি নির্বাচনে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ৩নং বৈকারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি চেয়ারম্যান হওয়ার পর বৈকারী ইউনিয়ন সন্ত্রাস ও জঙ্গিমুক্ত হয়েছে। পিতা অসলে সদর উপজেলা আ’লীগের সহ সভাপতি ও জেলা আ’লীগের সদস্য। তিনি দীর্ঘদিন ধরে স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তির সাথে লড়াই করে আসছেন। খালেক মন্ডল এমপি থাকাকালিন বিভিন্ন ভাবে মামলায় জড়িয়ে আমার পিতাকে হয়রানি করা হয়। তিনি মানবতা বিরোধী অপরাধী খালেক মন্ডলের মামলার মাঠ পর্যায় স্বাক্ষীদের সাথে সমন্বয়কারি হিসাবে কাজ করছেন। যার কারনে আমার পিতা অসলের জীবনের উপর ঝুকি থাকায় আর্ন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল তদন্ত শাখার পক্ষ থেকে তার ব্যক্তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি কখনো নিজেকে যুদ্ধাপরাধী মামলার স্বাক্ষী হিসাবে পরিচয় দেন না। ইনজামুল হক আরো বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে কিছু কুচক্রি মহল জামায়াত ও বিএনপি’র এজেন্ডা বাস্তবায়নে লিপ্ত হয়েছে। এরই জের ধরে ৩ মার্চ সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে মৃগীডাঙ্গা গ্রামের মৃত জনাব আলীর ছেলে নুরুল আমিন আমার পিতা অসলে সহ আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যেচারকরেছে। বেশ কয়েকদিন আগে মৃগীডাঙ্গা গ্রামের একটি ঘেরে মাছা ধরাকে কেন্দ্র  করে নুরুল আমিন ফনু একটি মিথ্যে মামলা করে। সেই মামলার আসামিদের জামিনে সহায়তা করায় আমার পিতার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে সে এধরনের মিথ্যে অপপ্রচার চালাচ্ছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, জামায়াত- শিবিরের এজেন্ডা বাস্তবায়নে ইউনিয়ন আ’লীগের দপ্তর সম্পাদক না হয়েও সংবাদ সম্মেলনে মিথ্যে তথ্য দিয়েছে। আমার নেতৃত্বে বৈকারী এলাকায় ক্যাডার বাহিনী গড়ে উঠা ও স্বর্ণ চোরাচালানীর সাথে জড়িত উল্লেখ করে যে তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে তা সম্পূর্ন মিথ্যে, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। আমি মোঃ ইনজামুল হক একজন মৎস্য চাষী ও দীর্ঘদিন ধরে সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছি। নুরুল আমিন একজন দালাল ও অসৎ চরিত্রের লোক। আাগমী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রখে জামায়াত পন্থী একজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর ইন্ধনে ও জামাযাতের অর্থায়নে আমাদের পিতা ও ছেলেকে সামাজিক ও রাজনৈতিক ভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে সে মিথ্যে অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি সংবাদ সম্মেলনে দেয়া নুরুল আমিনের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রকৃত পক্ষে ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী নামধারী অনুপ্রবেশকারী ব্যক্তিকে ব্যবহার করে জামায়াতের জঙ্গি ও সন্ত্রাসীরা বৈকারী ইউনিয়নে আ’লীগের শক্ত ঘাটিকেভেঙ্গে তচনছ করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তিনি এসব ষড়যন্ত্রকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।