দোবেকী কোষ্টগাডের বিরুদ্ধে জেলেদের কাছ বৈধ জাল উঠিয়ে নেওয়ার অভিযোগ।

2

জি এম মাছুম বিল্লাহ : দোবেকী কোষ্টগাড কর্তৃক জেলেদের কাছ অবৈধ ভাবে ফাঁস জাল উঠিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সাতক্ষীরা রেন্জের জেলেরা বনবিভাগের কাছ থেকে বৈধ ফাঁস জালের পাশ ও সরকারি রাজস্ব দিয়ে সুন্দরবনে মাছ ধরার জন্য প্রবেশ করে। বনবিভাগের অনুমতি নিয়েও বৈধ জাল খোওয়াতে হচ্ছে জেলেদের। বনবিভাগের বৈধ পাশ থাকা সত্বেও সুন্দরবনের বৈধ এরিয়া থেকে বৈধ জাল আটক করতে হলে বনবিভাগে অবহিত করতে হয়। বনবিভাগকে কোন প্রকার অবহিত না করে কোষ্টগাড জেলেদের কাছ থেকে বৈধ ফাঁস জাল তুলে নিচ্ছে।জেলেরা কোষ্টগাডের সাথে কথা বলতে গেলে বিভিন্ন ভাষায় গালিগালাজ ও শাররীক নিযাতন করা হচ্ছে বলেও একাধিক অভিযোগ উঠেছে। অবৈধ ভাবে জাল উঠিয়ে নেওয়ার বিষয়ে কোষ্টগাডের বিরুদ্ধে একাধিক জেলেরা সাতক্ষীরা রেন্জ বনকর্মকর্তার কাছে ১/১/২১ তারিখে লিখিত অভিযোগ করে। লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ২/১/২১ তারিখে রেন্জ কর্মকর্তার নির্দেশে তদন্তের সময় দোবেকী কোষ্টগাডের পল্টনে যেয়ে বৈধ ১৫/১৬ টা ফাঁস জাল দেখে তার সত্যতা পায়। পরে বিষয়টি বিভাগীয় বনকর্মকর্তাকে অবহিত করলে ১৯/২/২১ তারিখে নোটিশের মাধ্যমে জানান। পাশ করে জেলেরা সুন্দরবনে প্রবেশ করলে বৈধ এলাকা থেকে কোষ্টগাডের সদস্যরা জাল উঠাতে পারবে না বলে লিখিত নিদেশনা দেয়।কিন্তু সেই নিদেশনা অপেক্ষা করে প্রতিনিয়ত জেলেদের কাছ থেকে জাল তুলে নিচ্ছে দোবেকী কোষ্টগাড সদস্যরা । নাম বলতে অনিচ্ছুক মুন্সীগঞ্জ গ্রামের এক জেলে বলেন,বুধবার বড় বিবি খাল এলাকায় সকালে জাল ধর ছিলাম হঠাৎ দোবেকী কোষ্টগাডের সদস্যরা এসে জাল তুলতে বলে আমি বলি স্যার আমাদের পাশ আছে এছাড়া ফাঁস জাল দিয়ে মাছ ধরছি। কোস্টগাড সদস্যরা বলেন, বেশি কথা বলবিনা জাল দিতে বলছি জাল দে। বেশি কথা বল্লে কান ধরে উঠবেশ করতে হবে কিন্তু।মুন্সীগঞ্জ কালীনগর গ্রামের এক জেলে বলেন, বনবিভাগের অনুমতি নিয়ে মাছ ধরতে গিয়েছিলাম সুধে টাকা নিয়ে মাছ ধরার বৈধ জাল কিনে বনে যাই।দোবেকী কোষ্টগাডের সদস্যর আমাদের কাছ থেকে দুই খানা জাল নিয়ে নেয় যার মূল্য প্রায় বিশ হাজার টাকা। জাল না থাকায় খুব সমস্যার মধ্যে আছি।গাবুরা গ্রামের অনেক জেলেদের অভিযোগ, দোবেকী কোষ্টগাড আমাদের থেকে অন্যয় ভাবে জাল তুলে নেওয়া সহ মার ধর করছে।সরকারি নিয়ম অনুযায়ী সুন্দরবনে প্রবেশ করছি তারপরেও আমরা মাফ পাচ্ছি না।বৈধ পাশ নিয়ে সুন্দরবনে বৈধ এলাকায় প্রবেশ করেও মাফ পাচ্ছি না কোষ্টগাড আমাদের জাল তুলে নিয়েছে। এ বিষয় বনবিভাগের বুড়িগোয়ালীনি ষ্টেশন কমকতা সুলতান আহম্মেদ বলেন, অনেক জেলেরা আমাদের কাছে লিখত অভিযোগ করেছে। তাছাড়া জেলেরা সুন্দরবনের প্রবেশের অনুমতি নিয়ে প্রবেশ করলে বৈধ এলাকা থেকে ফাঁস জাল উঠিয়ে নেওয়ার আইন তাদের নেই।এ বিষয় দোবেকী কোষ্টগাডের দায়িত্বে থাকা সি সি কামরুল ইসলামের সাথে মোবাইলে কথা বল্লে সাংবাদিক পরিচয় শুনে ব্যাস্ত আছি পরে কথা বলবো বলে ফোন কেটে দেয়।কোষ্টগাডের জোনাল অফিসার (বাগেরহাট) এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমরা বৈধ কাজ ছাড়া করিনা।যদি আমাদের কেও এধারণের কাজ করে তাহলে বিষয়টা গুরুত্বের সাথে দেখা হবে।জেলেদের দাবি এধরনের নিযাতন থেকে মুক্তি পেতে বন বিভাগ ও কোষ্টগাডের উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

 


করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, 

উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন-

 লিংক বিডি ২৪ ডট কম। আজই পাঠিয়ে দিন - লিংক বিডি ২৪ ডট কম গুরুপে।