ফ্রান্স-জার্মানিসহ ২১ দেশে অ্যাস্ট্রাজেনেকা-অক্সফোর্ডের টিকা স্থগিত

5

জাতীয়: শরীরে রক্তজমাট বেঁধে যাওয়ায় ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, স্পেনসহ বিশ্বের ২১টি দেশ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ব্যবহৃত অ্যাস্ট্রাজেনেকা-অক্সফোর্ডের টিকা ব্যবহার স্থগিত করেছে। এরমধ্যে ১৮টি দেশই ইউরোপ মহাদেশের। বাকি তিনটির মধ্যে এশিয়া মহাদেশের দুটি দেশ ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ড আর গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র আফ্রিকা মহাদেশের বলে জানিয়েছে আল জাজিরা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অবশ্য বলছে, টিকা নেওয়ার ফলে শরীরে রক্তজমাট বেঁধে গেছে- এমন কোনও প্রমাণ তারা পায়নি।

একইভাবে, জাতিসংঘের স্বাস্থ্য সংস্থাগুলোও এ সংক্রান্ত সম্পর্কিত প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে দেশগুলোকে টিকা কার্যক্রম স্থগিত না করার আহ্বান জানিয়েছে। বিজ্ঞানীদের বরাত দিয়ে তারা বলছে, টিকা নিয়ে মানুষকে আতঙ্কিত করা উচিত নয়।ইউরোপের যেসব দেশ এখন পর্যন্ত অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহার স্থগিত করেছে তারা হলো- ফ্রান্স, জার্মানি, স্পেন, পর্তুগাল, স্লোভেনিয়া, নেদারল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, আইসল্যান্ড, ইতালি, বুলগেরিয়া, রোমানিয়া, ডেনমার্ক, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া ও লুক্সেমবার্গ।এসব দেশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহারের ফলে শরীরে রক্তজমাট বেঁধে যাচ্ছে। এজন্য টিকা গ্রহণ স্থগিত রাখা হয়েছে। তবে, ইন্দোনেশিয়াতে এ টিকার ব্যবহার শুরুর আগেই তা স্থগিত করা হয়েছে। আবার কোনো কোনো দেশে মাত্র কয়েকজনের কিছু শারীরিক সমস্যা দেখার দেওয়ায় অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহার স্থগিত করেছে।

এ পরিস্থিতিতে অ্যাস্ট্রাজেনেকা বলেছে, এই টিকা ব্যবহারের কারণে দেহে রক্ত জমাট বাঁধার কোনো প্রমাণ নেই।

ইউরোপীয় ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ‘ইউরোপিয়ান মেডিসিন এজেন্সি’ও (ইএমএ) কোনও প্রমাণ খুঁজে পায়নি। তারা এক বিবৃতিতে বলেছে, এটির উপকারিতা ঝুঁকির চেয়ে বেশি এবং এটি ব্যবহারে নিরাপদ ছিল।