খালিশপুরের চা দোকানী লিটন হত্যায় মামলা দায়ের : আটক ৭

2

নিজস্ব প্রতিবেদক : খুলনা মহানগরীর খালিশপুরের উত্তর কাশিপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মোঃ লিটন শেখ (৪০) নামে চায়ের দোকানীকে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। আজ রবিবার (১৮ এপ্রিল) ভোর রাতের এঘটনায় মোঃ আমিন (৩৫) নামে আরো এক যুবক জখম হন। এঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। হত্যাকান্ডে সম্পৃক্ততার অভিযোগে সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ।সুত্রে জানা যায়, নগরীর উত্তর কাশিপুর বাতিপাড়া পোড়া বাড়ি মসজিদ রোডের সোহবান শেখের ছেলে লিটন শেখের দু’টি চায়ের দোকান রয়েছে। লিটন একটি চায়ের দোকান নিজেই পরিচালনা করেন। চায়ের দোকানের আশপাশে এলাকার চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী ও একাধিক মামলার আসামি মৃত ফরিদ সরদারের ছেলে শাহদাৎ সেখানে মাদক ও মোবাইল ফোনে আইপিএলের জুয়ার আসর বসায়। চা বিক্রেতা লিটন শেখ মাদক ও ক্রিকেটের জুয়ার বিষয়ে প্রতিবাদ করলে সে ঘটনাকে কেন্দ্র করে লিটনের উপর ক্ষিপ্ত হয় শাহাদাৎ বাহিনী। গত ১৫ এপ্রিল লিটনের চায়ের দোকানের কর্মচারী মিজানের সাথে এলাকার ৫ বছর বয়সী জুয়েল নামে একটি বাচ্চা ছেলের সাথে সামান্য ঝগড়া হয়। এতে একই এলাকার সোহেল, রকিসহ আরো দুই তিনজন যুবক মিজানকে মারধর করে। এ নিয়ে এলাকায় সালিশি করে দেন কয়েকজন মুরব্বি। কিন্তু এতে সোহেল ও রকির রাগ মেটেনি। তারা লিটনকে সায়েস্তা করার জন্য খুঁজতে থাকে।নিহত লিটন শেখের স্ত্রী হেলেনা বেগম জানান, রাত একটার সময় তার স্বামী দোকান বন্ধ করে বাড়ির দিকে যাচ্ছিল এ সময় তাকে লোক মারফত ডেকে পাঠায়। লিটন দোকান থেকে বার্মাশীল কবর খানা রোড আতিয়ার শেখের বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছালে সেখানে ওঁৎ পেতে থাকা ১৫/২০ জন সন্ত্রাসী তার উপর হামলা করে। এ সময় লিটনের সহযোগী আমিন ছুটে এলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে। সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে লিটনের বুক, দুই হাত, পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গভীর ক্ষত হয়। তাদের চিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তাদের দুই জনকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় রাত সোয়া ২ টার সময় লিটনের মৃত্যু হয়।এ ঘটনায় লিটনের স্ত্রী হেলেনা বেগম বাদী হয়ে খালিশপুর থানায় জয়নাল, শাহাদৎ, আজা লিটন, রাজু, রোকন, আল আমিন, আসলাম, টিক্কি রুবেল, আকিব, সাকিব, আব্দুল্লাহ, এলকো সোহেল, গরু মামুন, মাড়ুয়া আল আমিন, হেলাল, সাব্বির, মোঃ মাহির, বাবু, আশিকুর রহমানসহ মোট ১৯ জনের নামে এজাহার করেছেন। এ মামলায় আরো ১০/১৫ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ৭ আসামীকে আটক করেছে।এ বিষয়ে খালিশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মোস্তাক আহমেদ বলেন, হত্যা মামলা রুজু হয়েছে, অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ৭ আসামীকে আটক করা হয়েছে। এ মামলা তদন্ত করবে ওসি (তদন্ত) নিমাই চন্দ্র কুন্ডু।